মুসলিম স্নাতক মহিলাদের বিয়েতে আর্থিক অনুদান দেবে কেন্দ্র Center to give financial grants to Muslim graduate women for marriage

 muslim-woman_web



মুসলিম সমাজ থেকে তিন তালাকের মতো কুপ্রথার অবলুপ্তি ঘটাতে উদ্যোগ নিয়েছে মোদি সরকার। আর এবার যেসব মুসলিম মহিলারা স্নাতক স্তর পর্যন্ত পড়াশোনা করেছেন, সেইসব মহিলাদের বিয়েতে আর্থিক সাহায্য করার সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু উন্নয়ন মন্ত্রক। ‘শাদি শগুন’ প্রকল্পে মুসলিম সম্প্রদায়ের স্নাতক মহিলাদের বিয়েতে উপহার হিসেবে ৫১ হাজার টাকা দেবে কেন্দ্রীয় সরকার। খুব তাড়াতাড়ি এই প্রকল্পের সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানানোর জন্য একটি ওয়েবসাইটও চালু করা হবে।

মুসলিম সমাজে তালাক শব্দটি তিনবার উচ্চারণ করেই স্ত্রীর সঙ্গে যাবতীয় সম্পর্ক ছিন্ন রেওয়াজ আছে। এই প্রথাটি তিন তালাক নামে পরিচিত। এই তিন তালাক প্রথার অবলুপ্তি ঘটাতে উদ্যোগ নিয়েছে মোদি সরকার। বিষয়টি এখন সুপ্রিম কোর্টের বিচারাধীন। কিন্তু, শুধু তিন তালাক প্রথার অবলুপ্তিই নয়, মুসলিম মহিলাদের মধ্যে শিক্ষার প্রসারও ঘটাতে চাইছে মেদি সরকার। আর সেই লক্ষ্যেই মুসলিম মহিলাদের জন্য ‘শাদি শগুন’ নামে একটি প্রকল্প চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু উন্নয়ন মন্ত্রক। এই প্রকল্পে মুসলিম মহিলাদের বিয়ের সময়ে উপহার হিসেবে ৫১ হাজার টাকা দেওয়া হবে। তবে শর্ত একটাই, যিনি বিয়ে করছেন, তাঁকে স্নাতক হতে হবে। কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু উন্নয়ন মন্ত্রকের অধীনস্থ মৌলানা আজাদ এডুকেশন ফাউন্ডেশন নামে একটি সংস্থাকে এই প্রকল্পটি রূপায়ণের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। বস্তুত, সম্প্রতি সংস্থার আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু উন্নয়ন মন্ত্রী মুখতার আব্বাস নকভি। সেই বৈঠকে মুসলিম মহিলাদের আর্থিক অনুদান দেওয়া বিষয়ে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বৈঠকে ঠিক হয়েছে, নবম ও দশম শ্রেণিতে পাঠরতা মুসলিম কিশোরীদের ১০ হাজার টাকা করে আর্থিক অনুদান দেওয়া হবে। এখন শুধুমাত্র একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়ার সময়ে মুসলিম কিশোরীদের ১২ হাজার টাকা করে আর্থিক অনুদান দেয় কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু উন্নয়ন মন্ত্রক।

 মৌলানা আজাদ এডুকেশন ফাউন্ডেশনের কোষাধ্যক্ষ শাকির হোসেন বলেন, ‘এখনও মুসলিম সমাজে একটি বড় অংশে মেয়েরা উচ্চশিক্ষা থেকে বঞ্চিত হয়। কারণটা মূলত আর্থিক। তাই মুসলিম সমাজেও মেয়েরা যাতে পড়াশোনায় উৎসাহ পায় এবং কমপক্ষে স্নাতক স্তর পর্যন্ত পড়াশোনা করতে পারে, তা নিশ্চিত করার জন্য বিয়ের সময়ে ৫১ হাজার টাকা করে আর্থিক সাহায্য করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এতে বাবা-মা বা অভিভাবকরাও কন্যাসন্তানের পড়াশোনার বিষয়ে যত্নবান হবেন।’ পাশাপাশি, এই প্রকল্প চালু করার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিরও প্রশংসা করেন তিনি।


The Modi government has taken initiative to eradicate the three divorced coup from the Muslim society. And now the Muslim minority women who have studied till graduation level, decided to help financially for women's marriage, the Union Minority Affairs Ministry said. In the 'Shadi Shagun' project, the central government will give 51 thousand rupees as gift to women of Muslim community. Very soon a website will be launched to provide detailed information about this project.

In Muslim society, the word talaq is pronounced three times by repeating the relationship with the wife. This tradition is known as three divorces. Modi Government has taken initiative to eradicate these three divorces. The matter is now pending with the Supreme Court. However, not only the abolition of three divorces but also the spread of education among Muslim women, the Medi Sarkar For this purpose, the Central Minority Affairs Ministry has decided to launch a project named 'Shadi Shagun' for Muslim women. 51 thousand taka will be given as gifts during the marriage of Muslim women in this project. But the condition is that, who is married, he has to be graduate. An organization named Moulana Azad Education Foundation under the Ministry of Central Minority Affairs has been given the responsibility to implement this project. In fact, recently a meeting with the officials of the organization, the Central Minorities Development Minister Mukhtar Abbas Naqvi. Several important decisions have been taken to provide financial aid to Muslim women in the meeting. It was decided in the meeting that financial aid will be given to 10 thousand rupees for Muslim boys in the ninth and tenth class. Now, in the eleventh and twelfth class, the central government provides central assistance to the girl child to the tune of 12 thousand rupees.



 
Shakil Hossain, treasurer of Maulana Azad Education Foundation said, "In a large part of the Muslim society, girls are deprived of higher education. The reason is mainly financially. So, in the Muslim society, it has been decided to provide financial support of 51 thousand rupees for the girls to get education encouraged and at least till graduation level. In this regard, parents or guardians will also be careful about the education of daughters. "Besides, Prime Minister Narendra Modi also praised the project for launching this project.
Share on Google Plus Share on Whatsapp



0 comments:

Post a comment