"সিপিএমকে প্রত্যাক্ষান করে বিজেপিতে যোগদান "

স্নেহাশিষ মুখার্জি :একসময়ের তৃণমূলের কট্টর বিরোধী সিপিএমের পায়ের মাটি ক্রমশই আলগা হতে চলেছে বাংলার মাটি থেকে বিজেপির তীব্র বিরোধিতায় | সারা বাংলায় বিজেপির ডাকে সারা দিয়ে দলে দলে সিপিএম থেকে বিজেপিতে যোগদানের ফলে কলকাতার আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের তাবড় তাবড় নেতাদেরও ইতিমধ্যে কপালে ভাঁজ | গত রবিবারও বর্ধমান সদরের গলসির নতুন বাজারে সাঁকো মাঠে ঘটে এক বিশাল জনসমাগম | 
উক্ত সভায় প্রধান বক্তা হিসাবে ছিলেন বিশিষ্ট মুখ টলিউডের রোমান্টিক হিরো তথা বিজেপির রাজ্য সদস্য জয় ব্যানার্জী যাকে প্রচারের মুখ করে প্রতিদিনিই পশ্চিমবঙ্গের তৃণমুলের দুর্গ থেকে ২০০ ৫০০ মানুষকে বিজেপির দিকে আনছে |এছাড়া সমগ্র অনুষ্ঠানে সভা অলংকৃত করেছিলেন সারা বাংলার বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তণ বসু , বিজেপির রাজ্য সদস্য অনল বিশ্বাস , বর্ধমানের জেলার সভাপতি সঞ্জিব নন্দী প্রমুখ ব্যক্তিবর্গ | উক্ত জনসভায় জয় ব্যানার্জী বলেন - " আগে তো মমতা ব্যানার্জী ডক্টর লিখতো , এখন লেখে না , আগে সততার প্রতীক লিখত , এখন আর লেখে না , কিছুদিন আগে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় ওনার পকেটের বিশ্ববিদ্যালয় ওনাকে" ডিলিট " উপাধি দিয়েছেন কিন্তু ওনাকে ডিলিট করে দেবেন পশ্চিমবাংলার মানুষ | 
2011- 2012 সালে মুকুল রায় একটা সভা করেছিল মমতা ব্যানার্জীকে সংগে নিয়ে | আমি জানি গলসিতে অনেক মুকুলপন্থি তৃণমুল আছে | যে দিন মুকুল রায় বিজেপিতে আসবে সেদিন এই গলসি থেকেই তৃণমূলের পতন শুরু হবে | আর ডেঙ্গু নিয়ে রাজনিতী করছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী , পুলিশ মন্ত্রী , স্বাস্থ্যমন্ত্রী , মুখ্যমন্ত্রী | আর এখানে মৃত্যুর মিছিল চলছে ,বারাসত ,হাওড়ায় যুদ্ধকালীন তৎপরতায় অ্যাম্বুলেন্স চলছে , আর উঁনি টানছেন গুজরাটের ডেঙ্গু প্রসঙ্গ | উঁনি নিজের ঘর না সামলে অন্যের ঘর দেখতে যাচ্ছেন | উঁনি যদি নিজের ঘর সামলাতে না পারেন , ঠিকমতো জায়গা যদি পরিষ্কার না রাখেন , তাহলে যে সব পরিবারের মানুষ মারা গেছে তাঁদের নিয়ে ওনার ঘর ঘেরাও করব | তাতে যদি রক্ত ঝরে রক্ত ঝরবে "| এদিনের জনসভায় পুরুষ মহিলা দিয়ে ২৫০ জন সিপিএম থেকে বেরিয়ে বিজেপিতে যোগদান করে |তার মধ্যে সংখ্যালঘু মানুশের ভিড়ও ছিল চোখে পড়ার মত |
Share on Google Plus Share on Whatsapp



0 comments:

Post a comment