" নেতা মান্নানের অকাল প্রয়ানে ভাঙন শুরু মুর্শিদাবাদের শাসক শিবিরে "

স্নেহাশিষ মুখার্জি :পশ্চিমবঙ্গে মুর্শিদাবাদ হল মুসলিম অধ্যুষিত প্রধান জেলা | আর সেই মুসলিম অধ্যুষিত জায়গা থেকে আজ বিজেপির জনসভায় পাঁচ শতাধিক দলীয়-কর্মী জনমত নির্বিশেষে সিপিএম ও তৃনমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করে | জয় ব্যানার্জীর এই বিশাল জনসভায় কয়েকহাজার লোকের জনসমাবেশ ঘটে | আর সেখানে মুর্শিদাবাদের মত জায়গা থেকে ৫০০ কর্মী-সমর্থক বিজেপিতে যোগদান করা মানে শাসকদলের কাছে এটা একটা ভয়ের কারণ বলে মনে করছে পর্যবেক্ষক মহল | এমতাবস্থায় দাঁড়িয়ে মুর্শিদাবাদের রাজনিতীতে যে ভাঙন শুরু হয়েছে মান্নান হোসেনের মৃত্যুর পরপরই তার প্রকৃষ্ট উদাহরণ হিসাবে এই চিত্রটাই জনসাধারণের কাছে চিত্রিত হল | বর্তমান মুর্শিদাবাদে জেলা সভাপতি করা হয়েছে বর্ষীয়ান নেতা সুব্রত সাহাকে ও  দলে গুরুত্বপূর্ণ অতিরিক্ত এই জায়গা পাওয়ায় যঠেষ্ট পরিমাণে আপ্লুত তাঁর ঘনিষ্ঠ মহল | কিন্তু মান্নান হোসেনের  সাংগঠনিক দক্ষতা ও বিভিন্ন দল থেকে নেতা কর্মীদের ভাঙিয়ে তৃণমূলে যোগদান করানোর ক্ষমতা ও একদা অধীরগড় নামে পরিচিত মুর্শিদাবাদ জেলাতে দিদির ঘাস ফুল ফোটাতে যতটা সফল হয়েছিলেন সেটাতে  তিঁনি কতটা কার্যকরী হবেন  তা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠছে বিভিন্ন মহল থেকে | কান্দিতে এইভাবে কম বেশি ৫০০ দলীয় কর্মী তৃণমূল কংগ্রেস , সিপিএম ছেড়ে  সরাসরি বিজেপিতে যোগদান দেওয়ায় যঠেষ্ট পরিমাণে মুর্শিদাবাদের শাসক শিবিরে কপালে ভাঁজ আনবে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক মহল | ইতিমদ্ধেই মুর্শিদাবাদের  বিশেষ কিছু জায়গা বিশেষ বিশেষ কিছু অনৈতিক ও সমাজবিরোধী ঘটনা নিয়ে বিজেপি শাসকদলকে কাঠগোড়ায় ওঠাতে চলেছে | যেগুলি খুব সত্বরই তাঁদের মুর্শিদাবাদের বিভিন্ন জনসমাবেশে তুলে ধরে তৃণমূলের সংগঠনকে তছনছ করার প্রয়াস করতে সমর্থ হবে দাবি বিজেপির  দলীয় সূত্রে  | আজকে প্রকাশ্য জনসভায় চিত্র তারকা তথা বিজেপির জনপ্রিয় নেতা জয় ব্যানার্জী বলেন গরিবের নেতা অধীর চৌধুরি আপনি বিজেপিতে যোগদান করে দেখুন , মোদিজির নেতৃত্বে মানুষের উপকার করে , কতটা আনন্দ পাবেন |এই ভাবে আজকের কান্দির  জনসভায় যদি জয় ব্যানার্জী ডাকে সাড়া দিয়ে  অধীর রঞ্জন চৌধুরী বিজেপিতে যোগদান করেন তাহলে মুর্শিদাবাদে তৃনমূলের সংগঠন যে তাসের ঘরের মত চুরমার হয়ে যাবে তা খুবই স্পষ্টত তৃণমূলের হাই কম্যান্ড এর কাছে..

Share on Google Plus Share on Whatsapp



0 comments:

Post a comment