চীনা দ্রব্য বয়কট নিয়ে দ্বিমুখি ভুমিকা সংঘের

মৃত্যুঞ্জয় সরদার :হিন্দুত্ববাদী সংগঠন আরএসএস ও তাঁর শাখা সংগঠনগুলি স্বদেশী অর্থনীতির আওয়াজ তুলে দেশে চীনা দ্রব্য বয়কটের রাস্তায় গেলেও হিন্দুত্ববাদী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আমলে চীনা দ্রব্যের অনুপ্রবেশ রুখতে কোন ভুমিকাতেই দেখা যায়নি মোদী সরকারের। ভারতে অনুপ্রবেশ হওয়া চীনা জিনিসপত্র বয়কট করে স্বদেশী  জিনিস ব্যবহার করার ডাক দিয়েছে আরএস এসের ছাত্র শাখা এবিভিপি।সম্প্রতি রাঁচিতে  জাতীয় কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানেই এই বিষয়টি অলোকপাত করে অখিল ভারতীয় বিদ্ধার্থী পরিষদের সদস্যরা। তাঁরা ছাত্র ছাত্রীদের উদ্দেশে বলেন, চীনা দ্রব্যের মোহ ত্যাগ করে দেশের জিনিস ব্যবহার করার। তাহলে আদতে তা ভারতের অর্থনীতির ক্ষেত্রেই লাভ। ভারতের বাজারে চীনা দ্রব্য যেভাবে গ্রাস করছে তা ভারতীয় অর্থনীতির ভবিষ্যতে সমস্যার সস্মুখীন হতে পারে। চীনা দ্রব্য বয়কট করতে তাই ভারতের যুব সমাজকেই আহ্বান করছেন এবিভিপর সদস্যরা। ভারতের বাজারে চীনের আগ্রাসন নীতিকে রুখতে উদ্যোগ নিয়েছে তারা। এভিপির - র এই মন্তব্যের প্রসঙ্গে মুখ খোলেন পড়ুয়ারাও। তাদের দাবী,কেন্দ্রের তরফে এহ বিষয়টি নিয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ  পদক্ষেপ গ্রহণ করা উচিত! চীন যেভাবে ভারতেই ইলেট্রনিক্স মার্কেটে  তাদের জাল বিস্তার করেছে সেটি যথেষ্ট চিন্তার বিষয়। চীনের দ্রব্য পুরোপুরি বন্ধ করতে হলে ওই ধরনের দ্রব্য ভারতে তৈরি করার উদ্যোগ নেওয়ার বিশেষ প্রয়োজন রয়েছে। আবার এদিকে মোদী সরকারই কলকাতা মেট্রোর জন্যে চীনা রেকের অডার দিয়েছেন। ডিজিটাল অথনীতি জোরদার করার নামে চীনের আলিবাবার পেটিএমকে তোল্লাই দেওয়া হচ্ছে। এই ভাবে চীনা দ্রব্য বয়কটের নামে দ্বিমুখী আচরণ চালাচ্ছে সংঘ পরিবার এমনটাই অভিযোগ বিজেপির।
Share on Google Plus Share on Whatsapp



0 comments:

Post a comment