অনুব্রত গড়ে অনুব্রত ঝড়ে আবারও অকালে ঝরে গেল পদ্দ-মুকুল !!!

Indiapost24 Web Desk:সোমবার বীরভূম জেলার ময়ূরেশ্বর ২ ব্লকে  তৃনমূলের এক মহিলা কর্মী  সভায় ২০থেকে ২৫ হাজার মহিলা ও পুরুষ কর্মী-সমর্থকদের উপস্থিতিতে বীরভূম জেলা সভাপতি অণুব্রত মণ্ডল বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিরোধীদের হাওয়ার মত আরো এক বার উড়িয়ে দিলেন | এদিন প্রকাশ্য মঞ্চে তিঁনি ময়ূরেশ্বরে পঞ্চায়েতের বাসিন্দাদের উদ্দ্যেশ্যে বলেন "এই অঞ্চলের মানুষজনদের সাধুবাদ জানাই , ধণ্যবাদ জানাই , কারণ তাঁরা বুঝতে পেরেছে যে উন্নয়ন করলে একমাত্র ক্ষমতাসীন শাষক দল তৃণমূলই করবে,বিজেপি নয় কারণ তারা বড়ো লোকের দালাল আর মমতার সরকার গরিবের সরকার,দিন মজুরের সরকার  | একদা ময়ূরেশ্বরে বিজেপির সংগঠন ছিল , কিন্তু এখন তাঁরা বুঝতে পেরেছে যে বিজেপি করে কোন লাভ নেই | কারন উন্নয়ন করলে একমাত্র এই রাজ্যে মমতা ব্যানার্জীই করবে , তাই উন্নয়নের সঙ্গে থাকতে হবে" | 

এরপর তিঁনি মহিলাদের উদ্দেশ্যে বলেন ৩৪ বছর দেখেছেন আর এই  ৬ বছরও দেখলেন,তাই এই ৬ বছর মমতা ব্যানার্জীর একের পর এক উন্নয়ন কি অস্বীকার করতে পারেন ? এই উন্নয়ন মানুষ চোখে দেখছে | মহিলা কর্মী সভা তাই মহিলাদের উদ্দেশ্যেই তিনি অভিমত দিয়ে তাদের কে উৎসাহিত করার প্রসঙ্গে বলেন আপনারা মহিলারাই তো ভবিষ্যত,আপনারাই আবার সংসারের হাল ধরে থাকেন ,গোটা সংসার জগতের দায়িত্ব আপনারা নেন | তাই তো ৩৪ বছরের অপশাসনের পর মমতা ব্যানার্জী গোটা পশ্চিম বাংলার দায়িত্ব নিয়েছেন | তাঁর সঙ্গে আপনাদেরও এবার দায়িত্ব দিয়েছেন | কারণ এখন যদি ১০ টা পঞ্চায়েত সদস্য থাকে টাহলে ৫ টা পুরুষ ও ৫ টা মহিলা | সমান অধিকার দিয়েছে | যা ভারতবর্ষের কোথাও নেই তা মমতা ব্যানার্জী করে দেখিয়েছে | এরপর তিঁনি কেন্দ্রের জনবিরোধী নীতির সমালোচনা করতে গিয়ে তিঁনি সরাসরি প্রধান মন্ত্ৰী নরেন্দ্র মোদীর উদ্দেশ্যে বলেন মোদি সরকারের কেন্দ্ৰীয় প্রকল্প বেটী বাঁচাও 
, বেটী পরা ও যার গোটা ভারতবর্ষে বাজেট একহাজার কোটি টাকা | আর তৃণমুল সরকারের রাজত্বে আমাদের রাজ্যে এই খাতে খরচ ১২০০ কোটি টাকা | এরপর আছে রূপশ্রী যে খাতে রাজ্যের খরচ ১৫০০ কোটি টাকা | আর অপরদিকে বিজেপি কেন্দ্রে ৪০ টা প্রকল্প বন্ধ করে দিয়েছে আর বড়োলোকদের দালালি করছে  | 

এই ভাবে তার সুকৌশল ও প্রাণবন্ত রাজনৈতিক বক্তব্যে ও বিরোধী শিবিরের প্রতি যথাযথ আক্রমণাত্মক মন্তব্যে উদ্বুদ্ধ হয়ে প্রায় শত খানেক বিজেপি নেতা সহ কর্মীরা চিরতরে পদ্দ শিবির ছেড়ে তার হাত ধরে তৃনমূল-পতাকা হাতে  তুলে নেন আর এই ভাবে পঞ্চায়েত ভোটের আগেই বিক্ষিপ্ত ভাবে গড়ে ওঠা বিজেপির সংগঠনকে আরো একবার ছাড় খার করে দেয়ায় রাজ্য বিজেপির ক্ষেত্রে এক বড়ো রাজনৈতিক আঘাত হলো বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক মহল       |
Share on Google Plus Share on Whatsapp



0 comments:

Post a comment