"পরিবর্তনের পরিবর্তন" ডাক দিয়ে কৃষান মোর্চা নেতা রতিকান্তের মিনাখাঁয় সফল এক জনসভা !!!

মোস্তাক আহমেদ : বিজেপির কৃষাণ মোর্চার পক্ষ থেকে বসিরহাট এর মিনাখাঁ ব্লকের চৈতল বিবেকানন্দ বিদ্যাপীঠ এর মাঠে কমবেশি হাজার তিনেক মহিলা পুরুষ কর্মি সমর্থকের উপস্থিতিতে ভোটের আগে জনসচেতনতা ও জনসংযোগ বাড়াতে এক জনসভার আয়োজন করা হয় । এদিনের সভায় উপস্থিত ছিলেন নেত্রী দেবিকা মুখার্জি, বিজেপি কিষান মোর্চার রাজ্য সভাপতি রামকৃষ্ণ পাল সঙ্গে সম্পাদিকা দেবযানি, হাজারী লাল সহ বসিরহাট সাংগঠনিক জেলা মোর্চার জেলা সভাপতি রতিকান্ত ঢালী।
বিভিন্ন নেতৃত্বরা বিজেপিকে ভোট দেওয়ার অনুরোধ করে উক্ত মঞ্চ থেকে , জেলার মোর্চা সভাপতি নেতা রতিকান্ত ঢালি গোটা ভারতবর্ষব্যাপী মোদিজীর বিভিন্ন প্রকল্প ও ভারতবর্ষকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার যে সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা তা তিনি উল্লেখ করে সাধারণ জনগণের সামনে তুলে ধরেন পাশাপাশি বলেন এই রাজ্যে মেহনতি গরীব কৃষক ভাইদের অবস্থা দিনে দিনে খারাপ হতে চলেছে,কিশান ম্যান্ডিতে তারা যথাযথ মূল্য পাচ্ছে না,কেন্দ্রের ফসল বীমা প্রকল্প অনুযায়ী তারা কাজও করছে না অথবা বাস্তবায়িতও করছে না  এই ভাবে রাজ্যের বর্তমান সরকার সব বিষয় পুরোপুরি উদাসীন যা সত্যি খুবই অবাক কান্ড।তিঁনি বিভিন্ন ভাবে রাজ্য সরকারের সমালোচনায় মুখর হন এছারাও রাজ্যে বিভিন্ন স্তরে যে লাগামহীন দুর্নীতি, চলছে স্বজন- পোষণ এর রাজনীতি,বিরোধীদের উপর আচমকা আক্ক্রমণ এর মতো অগণতান্ত্রিক রাজনীতি যা আর কোনো ভাবে চলতে দেয়া যাবে না । 

তাই রাজ্যে আগামী  ২০১৮ এর এই ত্রি-স্তর পঞ্চায়েত ভোটে আরও একবার সুযোগ আসছে রাজ্যবাসীদের জন্য  , ঠিক যেমন ভাবে দেশের  বিভিন্ন রাজ্যে যেমন ত্রিপুরা,গুজরাট, গোআ, মেঘালয় ও নাগাল্যান্ডে বিজেপিকে মানুষ জয়যুক্ত করেছেন নতুন দিশা দেখার জন্য সেই রুপে এই রাজ্যেও বিজেপিকে ভোট দিয়ে জয়ী করেন ফল হাতে নাতে দেখতে পাবেন কারণ রাজ্যে ৩৪ বছরের অপশাষনকে দূর করে আপনারা ৬ বছরের এই  লাগামহীন দুর্নীতি দেখলেন তাই একবার বিজেপি কে ভোট দিয়ে মাত্র একবার সরকার গঠন করতে দেন নিজেরাই নিজেদের কে ধন্যবাদ জানাবেন আবার আপনার আমার অগামী পিঁড়ি এক সুন্দর উন্নত বাংলা দেখবে, শুধু সঙ্গ দিন আর মূল্যবান ভোটটি আমাদেরকে দিয়ে একবার পরিবর্তনের পরিবর্তন' টা দেখুন।

তার এই সমালোচামূলক রাজনৈতিক বক্তব্যে টান টান উত্তেজনার সংগে সভা সমাপ্ত হয় তবে পর্যবেক্ষক মহলের মতে মিনখাঁর মত মুসলিম অধ্যুষিত জায়গায় তাঁর এই সংগঠন ও সভা আরও একবার প্রমাণ করে দিলো যে বাংলার মত পদ্দ চাষের অনুর্বর মাটিতে তাঁদের রোয়া বীজ নিঃসন্দেহে আস্তে অস্তে চারাতে রূপান্তরিত হচ্ছে !!
Share on Google Plus Share on Whatsapp



0 comments:

Post a comment