অসমে বাংলাদেশী মুসলিম অনুপ্রবেশ রুখতে কঠোর মোদি প্রশাসন ......

NNS:গুজরাট সহ নানা চাপের মধ্যেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও তাঁর সরকার অসমে বাংলাদেশি মুসলিম অনুপ্রবেশ রুখতে করা ব্যবস্থা নেওয়ায় সবুজ সঙ্কেত দেওয়ার পর বিজেপির নেতৃত্বাধীন বর্তমান অসম সরকার বাংলাদেশ -অসম সীমান্তে কঠোর নজরদারির জন্য নতুন নিরাপত্তা বাহিনী গড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন |একই সঙ্গে দ্রুত এন আর সি তালিকা প্রকাশে সচেষ্ট অসম বিজেপি সরকার |অসমের বিজেপি নেতাদের দাবি যে,বাংলাদেশ থেকে মুসলিম অনুপ্রবেশ রুখতে অতীতে অসমের কোন সরকারই কার্যকরী  ব্যবস্থা নেয়নি |অসম সহ উত্তরপূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলিতে বাংলাদেশ থেকে মুসলিম অণুপ্রবেশের ঘটনায় উত্তর পূর্বাঞ্চলে জনসংখ্যা চিত্রের দ্রুত পরিবর্তন ও মুসলিম জনসংখ্যার হার বেড়ে চলায় হিন্দু জাতীয়তাবাদীরা দীর্ঘদীন ধরেই অসমে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহনের দাবি জানিয়ে আসছিলেন |
২০১৪ সালে লোকসভা নির্বাচনে অসমে প্রচারে এসে নরেন্দ্র মোদি অনুপ্রবেশ মুক্ত অসম ও বাংলাদেশ থেকে চলে আসা হিন্দু বাঙালিদের নাগরিকত্ব দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন |বিগত অসম বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারের সময় ও অসম বিজেপি নেতারা অনুপ্রবেশ মুক্ত অসমের কথা বলেছিলেন |সেই প্রতিশ্রুতি বাস্তব রূপ দিতে মূখ্যমন্ত্রী সর্বনন্দ সানোয়াল,অর্থমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মার নেতৃত্বে অসম সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে ,অসম -বাংলাদেশ সীমান্তে নজরদারি বাড়াতে চারাট বিশেষ পুলিশ ব্যাটালিয়ন গঠন করা হবে |রাজ্য মন্ত্রীসভার বৈঠকে এমনই সিদ্ধান্ত নিয়েছে অসম সরকার |ভারত বাংলাদেশ সীমান্তে বিএসএফ এর পিছনে এই ৪টি ব্যাটালিয়ন দায়িত্ব পালন করবে |
তারা সীমান্তবর্তী গ্রামগুলিতে নজরদারি চালাবে ,টহল ও দেবে .তিঁনি আরও বলেন 'এক একটি ব্যাটালিয়ন ১০০০ করে পুলিশ কৰ্মী থাকবে '|সেই হিসেবে ৪০০০ পুলিশ কর্মীকে সীমান্তে নজিরদারির কাজে লাগনো হবে |এই ব্যাটালিয়নগুলি ধুবড়ি,দক্ষিন শালমারা ,মানকাছার,করিমগঞ্জের মত সীমান্তবর্তী জেলায় দায়িত্ব পালন করবে |বাংলাদেশ থেকে মুসলিম অনুপ্রবেশকারীরা বি এস এফ এরিয়ে অনুপ্রবেশ করার চেষ্টা করলেও যে ,পার পাবেন না ,তা নিশ্চিত করতেই অসম সরকার বাংলাদেশ সীমান্তে এই বাহিনীকে কাজে লাগাবে |ফলে বাংলাদেশ থেকে অনুপ্রবেশ জিরো পয়েন্টে নামানো যাবে |একই সঙ্গে অসমে থাকা অনুপ্রবেশকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান যে জোরদার হবে সে বিষয়ে নিশ্চিত অসমের রাজনৈতিক মহল |
Share on Google Plus Share on Whatsapp



0 comments:

Post a comment