ইরাকে এখন বিয়েও দুর্লভ


NNS :
সাদ্দাম হোসেনের মৃত্যুর পরবর্তী ইরাকে এখন বিবাহ ও দুর্লভ ঘটনা হোয়ে দাঁড়িয়েছে | যুবাবস্থায় পদার্পনের পরই ছেলেমেয়েরা তাঁর মনের মত সঙ্গী খুঁজতে থাকে , প্রেমেও পরে গরিষ্ঠাতাংশ তারপর সেই অনুসন্ধান বা প্রেম এগোয় বিবাহের দিকে | কিন্তু ইরাকে তা যেনো স্তব্ধ | জরুরি অবস্থা , যুদ্ধ , নাশকতা এখন ইরাককে আষ্টেপৃষ্ঠে বেঁধে রেখেছে | 


সেখানকার যুবজনতা প্রেমে পড়ার কথা আর ভাবতেই পারছে না | বিয়ে করে ঘর সামলানো তো দূর অস্ত | সাম্প্রতিক এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে যে গত পাঁচ বছরে বিয়ের সংখ্যা মাত্রাতিরিক্ত হারে কমেছে | বিষয়টি ভাবিয়ে তুলেছে ইরাকি সমাজবিজ্ঞানীদের | বাগদাদ বিশ্ববিদ্যালয়ে এক সমাজতাত্বিক বলেছেন , সরকার বিষয়টি নিয়ে কোন হেলদোলই দেখাচ্ছে না | কিন্তু ভেবে দেখতে গেলে সমস্যাটা এক বড়োসড়ো সামাজিক সমস্যা যা ইরাকিদের নিঃশ্বেস করে দেবে |

 ইরাকি ছেলেরা বিয়ে করতে ভয় পায় , কেন না সে জানে না কত দিন তার আয়ু | তেমনি মেয়েরাও বিয়ে করতে ভয় পায় এই ভেবে যে তার কপালে আছে অবধারিত অকালবৈধব্য | তার চেয়ে বরং বিয়ে না করাই ভাল | বস্তুত ইরাকের ঘরগুলিতে এখন অকাল বিধবারই ভিড় জমে গেছে | বাগদাদে এমন কোন ঘর নেই যেখানে কোন যুবক সন্তানের অকাল মৃত্যু হয় নি |
Share on Google Plus Share on Whatsapp



0 comments:

Post a comment