দক্ষিণ শহরতলিতে ডায়রিয়ার প্রকোপ

মৃত্যুঞ্জয় সরদার :কলকাতার মেয়র শোভন চট্রোপাধ্যায় কলকাতা পুরনিগমের দক্ষিণ শহরতলির বেশকিছু ওয়ার্ডে কি কারনে ডায়রিয়া তা নিয়ে পুরনিগম কর্তারা অনুসন্ধান চালাচ্ছে বলে জানান। এরপাশে পানীয় জল থেকে অন্ত্রিক ছড়ানোর অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছেন কলকাতার মেয়র। এদিকে ডায়রিয়ার প্রকোপ ইএম বাইপাস সংলগ্ন বাঘাযতীন যাদবপুরের বিস্তীর্ণ এলাকায় ব্যাপক উদ্বেগ দেখা দিয়েছে ।বিভিন্ন বিরোধী দল অভিযোগ তুলেছেন যে,পুরসভার সরববাহ করা পানীয় জল থেকেই এই ডায়রিয়া ছড়িয়েছে ।এদিকে পানীয় জল পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে ।
গত বৃহস্পতিবারে রাতে থেকে আক্রান্তরা বাঘাযতীন হাসপাতালে ভিড় করতে শুরু করেন। এরা মুলত বাঘাযতীন এবং যাদবপুর এলাকার বাসিন্দা। শনিবারও বহু মানুষ হাসপাতালে ভর্তি হন। শনিবার রাত আট টা  থেকে রবিবার সকাল সাত টা পর্যন্ত 137 জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন । আক্রান্তের সংখ্যা এতটাই বেশি যে বহু মানুষকে হাসপাতালে জায়গা দেওয়া যায়নি। অনেকেই স্যালাইন দিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে বলেও জানা গিয়েছে। ধাপার আজাদ হিন্দ জল প্রকল্প থেকে ডায়ারিয়া ছড়ানোর অভিযোগই আইএমএফ বাইপাস সংলগ্ন একাধিক এলাকায়। তালিকায় পুর্বালোক থেকে শুরু করে মুকুন্দপুর,গড়িয়া স্টেশন, পঞ্চাষায়র ,বাঘাযতীন,যাদবপুরের একটি অংশ।

 প্রকোপ সব থেকে বেশি 102 নম্বর ওয়ার্ডে।এই ওয়ার্ডের বিরোধী কাউন্সিলার সিপিএম নেত্রী রিঙ্কু নস্কর জানিয়েছেন, এলাকায়৬০ শতাংশ মানুষ জল কিনে খান। তাঁদের সমস্যা হয়নি। ডায়রিয়া আক্রান্ত ওয়ার্ডগুলির মধ্যে রয়েছে ১০১,১০৭,১০৮,১০৯ এবং ১১০ নম্বর ওয়ার্ড। ডায়রিয়া আক্রান্তের সংখ্যা ৬০০ ছাড়িয়েছে বলে জানিয়েছেন মেয়র শোভন চট্রোপাধ্যায়। তাঁর দাবী, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে। তবে জল থেকেই হয়েছে কিনা সেটা এখনই বলা যাচ্ছে না বলে জানিয়েছেন মেয়র। পুরসভার হেলথ ইউনিট খোলা রয়েছে পাশাপাশি পর্যাপ্ত ওষুধ এবং ওআরএসএস এর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। আক্রান্তদের স্যালাইন দেওয়া হচ্ছে। অধিকাংশই ডিহাইড্রেশন এ আক্রান্ত বলে  জানিয়েছেন হাসপাতাল কতৃপক্ষ। পানীয় জল নিয়ে বাম,কংগ্রেস ও বিজেপি, তৃনমুল পরিচালিত পুরনিগম এর দিকে আঙ্গুল তুলেছে।

Share on Google Plus Share on Whatsapp



0 comments:

Post a comment