স্বেচ্ছাসেবী মেডিক্যাল ব্যাঙ্কের রক্তদান!!!

  
স্নেহাশিস মুখার্জি , নদীয়া , ৯ ডিসেম্বর  
৩৮ বছর ধরে রক্তদানে মানুষকে উৎসাহিত করে চলেছে মেডিক্যাল ব্যাঙ্ক নামে এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা | ১৯৮০ সাল থেকে সংস্থার সম্পাদক ডি আশীষ এবং তাঁর সতীর্থরা ক্লাবে ক্লাবে যাতে রক্তদান হয় সেই ব্যাপারে আজও মানুষকে সচেতন করে আসছেন যে মানুষই পারে মানুষের জীবন বাঁচাতে তাঁর শরীরের রক্তের বিনিময়ে এবং সেই সচেতনতা শিবির রবিবার ৩৮ বছরে পা দিল  | 


আর মেডিক্যাল ব্যাঙ্কের সেই মানবিক সচেতনতা  অভিযানের ফসল স্বরূপ রবিবার পুরুষ মহিলা সহ ১৫০ জন স্বেচ্ছায় রক্তদানে অংশগ্রহণ করেন | তবে মেডিক্যাল ব্যাঙ্কের তরফ থেকে এদিন রক্তদাতাদের ট্যাটুর ভাইরাসজনিত ক্ষতিকারক দিকগুলি সম্পর্কেও সচেতন করা হয় | ট্যাটু অঙ্কিত রক্তদাতাদের রক্তদান থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দেওয়া হয় | সংস্থার সম্পাদক ডি আশীষ জানান শুধু কলকাতা নয় কলকাতার বাইরেও বিভিন্ন জেলাতে হাওড়া , উত্তর দক্ষিণ ২৪ পরগণা , হুগলি , পূর্ব পশ্চিম মেদনীপুর , বর্ধমানের মত জেলাতেও ওনাদের শাখা রয়েছে | সেখানেও একইভাবে মানুষকে উৎসাহিত করা হচ্ছে | 


তবে তাঁর গলায় আক্ষেপ যে তাঁরা এখন পর্যন্ত এতটা সাবলম্বী হয়ে উঠতে পারে নি যে সারা ভারতবর্ষের রক্তের যোগান দিতে পারবে | এমনকি পশ্চিমবঙ্গেও চাহিদা মতন জোগান দিতে পারেন না তবে ওনার বিশ্বাস একদিন মানুষ আরও সচেতন হবে , এবং হয়ত এই রক্তদানে আরও বেশি করে মানুষ এগিয়ে আসবে | তখন হয়ত আর কেউ রক্ত সংকটে মারা যাবে না | এরপর মেডিক্যাল ব্যাঙ্ক প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি বলেন -  বিভিন্ন সময় মানুষ তাঁদের কাজে না লাগা ওষুধ ফেলে দেন | আর এই ফেলে দেওয়া ওষুধকেই বাড়ী বাড়ী থেকে সংগ্রহ করে কোলকাতার বুকে তৈরি হয়েছে মেডিক্যাল ব্যাঙ্ক নামে এই  স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা | এর প্রকৃত উদ্দেশ্য  এখানে এসে যেন দরিদ্র মানুষরা বিনা পয়সায়  ওষুধটা সংগ্রহ করতে পারে | তবেই হবে মেডিক্যাল ব্যাঙ্ক নামের প্রকৃত সার্থকতা |  এছারাও তিনি জানান মেডিক্যাল ব্যাঙ্ক পথ শিশুদের সুরক্ষা নিশ্চিত করা , প্রবীণ নাগরীকদের অভাব অভিযোগকে গুরুত্ব দিয়ে বিচার করে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নেওয়া , থ্যালাসেমিয়া শিশুদের সঠিক চিকিৎসার ব্যাবস্থা করা , মাদক সেবনকারীদের সমাজের মূল স্রোতে ফিরিয়ে আনার মত সামাজিক কাজকেও গুরুত্ব সহকারে সম্পাদন করে থাকেন | এছারা কলকাতা পুলিশের যৌথ উদ্যোগে নবদিশা স্কুল  চালান হয় | এছারাও এই মেডিক্যাল ব্যাঙ্ক থেকেই একটা নেগেটিভ ব্লাড গ্রূপের ক্লাব করা হয়েছে | কারণ অনেক নেগেটিভ রক্তের মানুষই জানেন না ব্লাড ব্যাঙ্কে নেগেটিভ গ্রূপের রক্ত না থাকলে কে তাঁদের সাহায্য করবে ? তাই এই উদ্যোগ | এখানে কোন টাকা পয়সা লাগে না | ফ্রম ফিলাপ করে দুটো ফটো দিলেই হয়ে যাবে সদস্যপদ | পেয়ে যাবেন উক্ত ক্লাবের আই কার্ড | 

রবিবার মেডিক্যাল ব্যাঙ্কের এই রক্তদানের অনুষ্টানটি উদ্বোধন করেন কলকাতা পুলিশ কমিশনার সুজয় কুমার চন্দ্র | অনুষ্ঠানটিতে উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক মালা সাহা , কাউন্সিলার মোহন গুপ্তা ,  বেদান্ত মঠের মহারাজ সুদর্শনা , এমআইসি গোষ্ঠির স্বপন সমাদ্দার ,  সীতা জয়সাওয়ারা , শ্যামপুর থানার অতিরিক্ত ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক  প্রশান্ত ভৌমিক সহ বিভিন্ন সরকারী বেসরকারী হসপিটালের চিকিৎসক বৃন্দ |
Share on Google Plus Share on Whatsapp



0 comments:

Post a comment