আব্বাস সিদ্দিকী বিতর্কে অধীরের পাশেই সোনিয়া !!!

 



স্টাফ রিপোর্টার ৩রা মার্চ :পশ্চিমবঙ্গে বাম কংগ্রেস ও আব্বাস সিদ্দিকীর দলের ভোট সংকটে কংগ্রেস হাইকমান্ড এবার সরাসরি পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর পাশেই দাঁড়ালো। প্রসঙ্গত উল্লেখযোগ্য যে পশ্চিমবঙ্গের আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে একদিকে শাসক তৃণমূল, অন্যদিকে হিন্দু সাম্প্রদায়িক দল বিজেপিকে রুখতে তৃতীয়  জোট গঠনে কংগ্রেসের সঙ্গে এসেছেন ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী সর্মথকরা। তবে বামফ্রন্ট কংগ্রেস জোট আব্বাস সিদ্দিকীর ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের অন্তর্ভুক্তি 

নিয়ে কংগ্রেসের অন্দরে কোন্দল চরমে উঠেছে।এই পরিস্থিতিতে বিধানসভার বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান কে ফোন করে পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক পরিস্থিতির খোঁজ নিয়েছেন আনন্দ শর্মা। যা নিয়ে সরগরম রাজ্য থেকে জাতীয় রাজনীতি। কারণ কংগ্রেসের ধর্মনিরপেক্ষতার আদর্শের প্রশ্ন তুলে টুইটারে আই এস এফ এর মত মৌলবাদী শক্তির সঙ্গে হাত মেলানোর বিরোধিতা করেছিলেন আনন্দ ‌।যা নিয়ে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী পাল্টা খোঁচা দিয়েছিলেন আনন্দকে।এবার অধীর রঞ্জন চৌধুরীর পাশে দাঁড়ালেন সোনিয়া গান্ধী। তিনি জানিয়ে দেন বিজেপিকে রুখতে পশ্চিমবঙ্গে বামেদের সঙ্গে জোট।সুতরাং নাম না নিলেও অধীরের পাশে তিনি দাঁড়ালেন এবং অন্যান্যদের বার্তা দিলেন বলে মনে করছেন রাজনৈতিক কুশীলবরা।


এই বিষয়ে আব্দুল মান্নান বলেন, আনন্দ আমাকে ফোন করেছিলেন। আর আই এস এফ কে সঙ্গে নিয়ে বাম কংগ্রেস জোট এর বিষয়ে জানতে চেয়েছিলেন। আমি তাকে রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করে সিদ্ধান্তের প্রয়োজনীয়তা বুঝিয়েছি।আনন্দ শর্মার মত যেসব নেতা প্রশ্ন তুলেছেন তাঁদের রীতিমতো সতর্ক করে দিয়েছেন সোনিয়া। গত রবিবার ব্রিগেডের সভায় সংযুক্ত মোর্চার সঙ্গী আইএসএফকে নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। কংগ্রেসের রাজ্যসভার এমপি প্রাক্তন মন্ত্রী আনন্দ শর্মা এই ধরনের জোটের সমালোচনা করেছেন।প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী জবাবে জানিয়ে দিয়েছেন হাইকমান্ডের নির্দেশ মতোই তিনি দায়িত্ব পালন করছেন। অহেতুক বিতর্ক তোলা উচিত নয়।

আনন্দ ও আইএসএফ নিয়ে বিতর্কে সরাসরি উল্লেখ না করে টুইটারে লেখেন, আমরা আমাদের উদ্বেগের কথা বলতে চেয়েছি। আমরা যা বলেছি তা সঠিকভাবে দেখা প্রয়োজন। আমরা দলকে শক্তিশালী করতে চাই। আমরা এমন কিছু করতে চাই না যাতে দল দুর্বল হবে। এদিকে এআইসিসির সাংবাদিক সম্মেলনে হাইকমান্ডের বক্তব্য স্পষ্ট করে। এদিকে এআইসিসির সাংবাদিক সম্মেলনে হাইকমান্ডের বক্তব্য স্পষ্ট করে রাজ্যসভার এমপি অভিষেক মনু সিংভি জানান, পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির গুন্ডামির রাজনীতি রুখতে ই মূলত জোট হচ্ছে।

Share on Google Plus Share on Whatsapp



0 comments:

Post a comment