কুপিয়ে জ্যান্ত পোড়ালো হল মালদার যুবককে

মৃত্যুঞ্জয় সরদার :এবার বিজেপি শাসিত রাজস্থানে এক হিন্দু মেয়েকে বিয়ে করার আপরাধে পশ্চিমবঙ্গের মালদহের এক বাঙ্গালী মুসলিম যুবককে নৃশংসভাবে খুন হতে হলো । এই ঘটনায় ভিডিও ভাইরাল হওয়াতে দেশজুড়ে নিন্দার ঝড় বইছে। জানা গেছে যে,প্রথমে লাটি দিয়ে মার। পরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপ। বেধড়ক মার খেয়ে তখন বাঁচার আর্জি  জানানোর ক্ষমতাটুকুও ছিল না মালদহ বাসিন্দা এক তরতাজা যুবক মহম্মদ আফরাজুল। তার পর পরই  কেরোসিন ঢেলে দেশলাই জ্বলিয়ে জ্যান্ত পুড়িয়ে দেওয়া হল তাঁকে! তবুও মৃতপ্রায় যুবককে বাঁচাতে এলেন না কেউ, বরং লেন্সবন্দী  করা হল গোটা ঘটনার ভিডিও টি । বিজেপি শাসিত রাজস্থানে লাভ জিহাদ দমনের নামে কট্রর হিন্দুত্ববাদীদের নারকীয় বিভৎস অমানবিক তা ব্যবহৃত  যে কোন বিশেষ মাত্রার বিশেষণই  নেহাত ক্ষুদ্র বলে মনে হবে যে কোনো  সমাজ ও সভ্যতার কাছে । রাজস্থানের এই তথাকথিত লাভ জিহাজের ঘটনার "শাস্তি প্রক্রিয়া" বর্ণনা  করার ক্ষেত্রে। সভ্যতার উপর থেকে মানুষত্বর প্রলেপ টুকু উঠে গেলেই  প্রগৈতিহাসিক যুগের গাঢ় অন্ধকারটা  কোথায় যেন হটাৎ বেরিয়ে আসে, আর তারই  সাক্ষী থাকলো মাদলা ও রাজস্থানের মানুষ জন । 


নেপথ্যের কাহিনী বলতে গেলে পিছিয়ে যেতে হবে কয়েকটা বছর। কাজের সুত্রে রাজস্থানে গিয়েছিলেন মালদার  মহম্মদ আফরাজুল। সেখানেই কাজ জুটিয়ে চলছিল দিন গুজরান ।আর তার অন্যায় যে সে রাজস্থানের মেয়ে রুমারানী প্রেমে পড়ে যায় । সেখান থেকে শুরু হয় সমস্যার সুত্রপাত।কিন্তু শেষমেষ ভালোবাসার অপরাধে নিজ  প্রাণটাকেই দিতে হল আফরাজুলকে। প্রথমে তাকে এলো-পাথারি মার-ধার  তার পর কোপানো হয়,এই ভাবে পরে মাটিতে ফেলে তাঁর গায়ে কেরোসিন ঢেলে জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। ভিডিও দেখতে পাওয়া লাল জামা পরিহিত এই ব্যক্তিকে বলতে শোনা যায়  "এই কাজের জন্য উচিত শিক্ষা দেওয়া হয়েছে তাঁকে"। ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর ইন্টারনেটে গোটা দেশে সমালোচনায় বন্যা বইছে। এই যুগেও একজন 'মানুষ' কতটা পাশবিক হতে পারে, তারই যেন প্রমাণ মিলছে গোটা এই ভিডিও জুড়ে। রাজস্থানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী গোপাল চাঁদ কাটারিয়া জানিয়েছেন দোষী শ্মভুলাল রেজারকে গ্রেফতার করা হয়েছে।পুলিশ সূত্রে খবর ঘটনাস্থল থেকে একটি ধারালো কুঠার ও একটি স্কুটার উদ্ধার হয়েছে. 
Share on Google Plus Share on Whatsapp



0 comments:

Post a comment