আগামী দিনে জোটের নামে ভোট চাইতে এলে ঝেঁটিয়ে বিদায় করবেন : রাজীব হোসেন

স্নেহাশিষ মুখার্জি :রাজ্যে পঞ্চায়েত ভোট যতই এগিয়ে আসছে বিরোধী শিবির তথা শাসক দলের মধ্যে চলছে বিভিন্নভাবে ভাঙ্গাগড়ার এক রাজনৈতিক খেলা | আর সেই ভাঙ্গা গড়ার খেলাতে মত্ত হয়ে স্বভাবসিদ্ধভাবে বাবার দেখানো পথকে পাথেয় করে প্রয়াত মান্নান পুত্র মুর্শিদাবাদ জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক ও লালবাগ মহকুমা নেতা রাজীব হোসেন এদিন রাজনৈতিক কৌশলে ও দিদির উন্নয়ন কে হাতিয়ার করে বিভিন্ন দলের নেতা কর্মীকে ঘাঁস ফুলের পতাকা তলে নিয়ে আসলেন | যতই দিন যাচ্ছে অধীর গড়কে বাবা যেমন ছিন্নভিন্ন করে দিয়েছিল বাবার উত্তরসূরি  হিসাবে মান্নান পুত্র রাজীব হোসেনও প্রতিদিন কোন না কোনওভাবে কোন না কোন সভা থেকে বিরোধী শিবিরের কৰ্মী ও সমর্থকদের শাসক শিবিরে অর্থাৎ নিজের দলে টেনে আনছেন | আজই তার এক উৎকৃষ্ট উদাহরণ হিসাবে আবারও আমাদের ওয়েব মাধ্যমে উঠে এল যে মুর্শিদাবাদ জেলার ৩ য জিয়াগঞ্জ থানা তৃনমূল কংগ্রেসের মুকুন্দবাগ অঞ্চল কমিটির পঞ্চায়েতী রাজ এবং বুথভিত্তিক কর্মি সম্মেলনে সমীরণ ঘোষ (টিপু ) সহ ২০০ জন দলীয় কর্মিকে কে দীর্ঘদিনের কংগ্রেস ছেড়ে শাসক দল তথা তৃনমূল কংগ্রেসে যোগদান করালেন  রাজীব হোসেন  আজিমগঞ্জের হাজির বাগান ময়দানে | 


কর্মি সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে মান্নান পুত্র মঞ্চ থেকে মা বোনেদের উদ্দেশ্যে বলেন - ' যেসব মা বোনেরা বসে আছেন তাঁদের কাছে আমার বার্তা যাঁরা কোনোদিনও উন্নয়ন করে নি , যাঁরা কোনোদিনও মানুষের পাশে ছিল না তাঁরা আগামী দিন দুয়ারে দুয়ারে যাবে জোটের নামে ভোট চাইতে | সিপিএম , কংগ্রেস , এসইউসি , বিজেপি মিলে একটা প্রার্থী হবে , সেই প্রার্থী হয়ে আপনাদের কাছে ভোট চাইতে আসবে , ঝাঁটা নিয়ে তৈরি থাকুন ঝেঁটিয়ে বিদায় করবেন সব জঞ্জাল কে  | আপনারা এখন থেকে বিষয়টা নিয়ে ভাবতে শুরু করুন | জোট প্রার্থী ঘোঁট করার আগেই ঝাঁটার বাড়ি দেবেন | তিনি আরো বলেন তার মতে  কোন রাজনৈতিক দলের এই মুকুন্দবাগে ভোট চাওয়ার অধিকার নেই | কারণ তৃনমূল কংগ্ৰেসের সৈনিকরা নেত্রীর আদর্শে ও জেলা পর্যবেক্ষকের পরামর্শে সাধারণ মানুষজনের  পাশে থেকে যেভাবে  কাজ করছে  তাতে বিরোধিদের কোন জায়গা নেই , আর আপনারা যদি ঠিক থাকেন তাহলে বিরোধিরা কোন জায়গাও পাবে না | 


তাই আগামী ২০১৮ এর ত্রি-স্তর পঞ্চায়েত নির্বাচনে সকলে মিলে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বুথভিত্তিক যে সংগঠন আছে তাঁদের সকলকে নিয়ে একত্রিত ভাবে ঝাঁপিয়ে পরতে হবে আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিরোধি শূন্য পঞ্চায়েত গড়তে | বিগত দিনে এই পঞ্চায়েতে সিপিএম , কংগ্রেস অনেক রাজত্ব করেছে , তাঁদের নেতাদের তাণ্ডবে যাঁরা ঠিক মত কাজ করতে পারেনি তাঁরা তৃনমূল কংগ্রেসে যোগদান করেছে | কংগ্রেস এখন মুর্শিদাবাদে সাইনবোর্ড হয়ে গেছে , বিগত দিনে যাঁরা কংগ্রেস করত তাঁরা এখন সবাই তৃনমূল কংগ্রেস হয়ে গেছে  | রাজনৈতিক মহল মনে করছেন পঞ্চায়েত ভোটের প্রাককালে এই ধরণের সাফল্য শাসক দলের একদিকে যেমন মনোবল বাড়াবে অপরদিকে বিরোধীদের আরও হতাশার দিকে ঠেলে দেবে |
 অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন  জিয়াগঞ্জ থানার তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি দেবাশিস সরকার, জিয়াগঞ্জ আজিমগঞ্জ পৌরসভা পৌরপিতা প্রসেঞ্জিত দাস, সহ-সভাপতি মলয় রায়, ছাত্র নেতা সুমন কুমার দাস ও অন্যান্য নেতৃবৃন্দ |
Share on Google Plus Share on Whatsapp



0 comments:

Post a comment