এবার জল্পনায় টালিগঞ্জও!!!



Staff Reporter,Indiapost24:পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় আসবে প্রথম দুই পর্বে, বিশেষ করে ১ এপ্রিল নন্দীগ্রামের ভোট পর্ব  মেটার পর।  সূত্রের খবর যে, দুই পর্বের নির্বাচনের পর পিকের টিম আই প্যাক, মমতা - অভিষেকের নিজস্ব আস্থাভাজন বাহিনী,রাজ্য সরকারের গোয়েন্দা বাহিনী রিপোর্ট পাওয়ার পর মমতা চমকপ্রদ সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।যদি মমতা নিশ্চিত হন যে, দ্বিতীয় পর্বের পর নন্দীগ্রামে তিনি জিতছেন।প্রথম ইতিবাচক তথ্য তিনি পেলে মমতা শিবির বুঝে যাবেন।


শুধু নন্দীগ্রামই নয়, প্রথম দুই পর্বের ৬০ আসনের সংখ্যাধিক্য আসন তৃণমূল জিতবে। এরপরেই আরো আগ্রাসী  ও ইতিবাচক প্রচারে ঝাঁপাবেন মমতা। অন্যদিকে দ্বিতীয় পর্বের ভোটের পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যদি বুঝতে পারেন যে নন্দীগ্রামে লড়াই খুব তীব্র। যে কোন ফল বেরিয়ে আসতে পারে।


প্রথম দুই পর্বে গেরুয়া শিবিরে ৬০আসনের সংখ্যাধিক্য আসনে জয়ী হওয়া নিশ্চিত সম্ভাবনার কথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর ঘনিষ্ঠ বৃত্ত বুঝতে পারলে তখন অন্য  স্ট্র‍্যাটিজির  ভাবনা উঠে আসতে পারে তৃণমূল  শিবিরে। 


রাজনৈতিক মহলের নির্দিষ্ট খবর যে সেরকম নির্বাচনী পরিস্থিতি তৈরি হলে শেষ পর্যন্ত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সপ্তম পর্বের দ্বিতীয় আসনে লড়াইয়ের সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। এজন্য দক্ষিণ কলকাতার টালিগঞ্জ আসনটি  বেছে রাখা হয়েছে।এই কেন্দ্রের বিধায়ক টলিউড শাসনকারী মমতার ঘনিষ্ঠ ও আস্থাভাজন বৃত্তের মানুষ রাজ্যের যুব কল্যাণ, ক্রীড়া ও পুর্ত দপ্তর এর ভারপ্রাপ্ত দাপুটে তৃণমূল নেতা অরূপ বিশ্বাস।


 দ্বিতীয় পর্বে নন্দীগ্রামে জয়ের অনিশ্চিত ও নেতিবাচক পরিস্থিতি তৈরি হলে সকলকে চমকে দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দক্ষিণ কলকাতার টালিগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্র দ্বিতীয় আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নাটকীয় সিদ্ধান্ত পারেন।তাই স্বাভাবিকভাবে পশ্চিমবঙ্গে এবারের হাইভোল্টেজ বিধানসভা নির্বাচনে মমতার তৃতীয়বার ক্ষমতায় ফেরার লড়াইয়ে টালিগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্র নিয়ে রাজনৈতিক জল্পনা  ক্রমেই তীব্র হচ্ছে। 


অন্যদিকে গেরুয়া শিবির রাজ্যের বিভিন্ন অংশে মমতা নন্দীগ্রামে  হারচ্ছেন এই জল্পনা ছড়িয়ে দিতে চাইছেন। তৃণমূল নেতৃত্ব ও মমতার ঘনিষ্ঠ বৃত্ত প্রকাশ্যে যাই বলুন না কেন,নন্দীগ্রাম নিয়ে তাঁরা যে বেজায় চিন্তায় সে বিষয়ে নিশ্চিত রাজনৈতিক মহল।২৭ মার্চ ও ১ লা এপ্রিল পশ্চিমবঙ্গের এবারের সংঘাতময়  বিধানসভা নির্বাচনের প্রথম ও দ্বিতীয় পর্বের ভোট প্রক্রিয়া শেষ হয়ে যাবে। প্রথম দুই পর্বে নরেন্দ্র মোদি- অমিত শাহ - যোগী আদিত্যনাথের হাইভোল্টেজ নির্বাচনী প্রচারের  বিরুদ্ধে মমতার অস্ত্র অবশ্য তাঁর হুইল চেয়ার ও ব্যান্ডেজ বাঁধা পা। স্পষ্টতঃ লক্ষ‍্য সহানুভূতি  ভোট আদায় করা।

Share on Google Plus Share on Whatsapp



0 comments:

Post a comment